ক্ষমতার নেশায় পাগল হাসিনা

0

শেখ হাছিনার ক্ষমতার নেশা এতটাই যে পাখির মত দেশ ও বিদেশের মানুষ হত্যা করছে!!!

গত সাত বছর একের পর এক নাটকের জন্ম দিয়ে দেশর মানুষ হত্যা করছে। গুম ধর্ষণ লুটপাট মায়ের গর্ভের শিশু থেকে শুরু করে দেশ বিদেশের কেউ নিরাপদ না এই হায়েনা সরকারের হাতে। এমন কোন সন্ত্রাসী কর্মকান্ড নেই যা আওয়মী লীগ করছে না।

আওমী লীগ সরকার কেন দেশের মানুষ হত্যা করছে?কারন তারা জনগনের দ্বারা নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি না সন্ত্রাসী তান্ডব চালিয়ে তারা ক্ষমতা দখল করেছে।দেশের মানুষের প্রতি তাদের কোন দরদ নেই।দেশের মানুষের প্রতি দরদ তারই থাকে যিনি জন প্রতিনিধি। একজন এমপি হয়ে কি করে একটি বাচ্চা ছেলেকে গুলি করলো? একবার খেয়াল করুন এই অবৈধ সরকারের উপর থেকে নিচ পর্যন্ত ও নেতা থেকে কর্মী পর্যন্ত সবাই দেশের মানুষের উপর আক্রমণাত্মক ভাব নিয়ে আছে।

শেখ হাছিনা এবং জয় জঙ্গি জঙ্গি নাটক করে নিরীহ বিদেশীদের হত্যা করছে।বিশ্ব দরবারে গোটা জাতিকে জঙ্গি বানিয়ে বিশ্বের বৃহত গণতান্ত্রিক শক্তি শালী দেশ গুলোকে বোকা বানিয়ে স্বৈরতন্ত্র কায়েম করতে চাইছে।হাছিনা পুত্র জয় বিদেশের মাটিতে বসে ভুয়া উপদেষ্টার পদ নিয়ে কোটি টাকার উপরে বেতন নিচ্ছে।(৩০ বিলিয়ন টাকা জয়ের একাউন্টে জমা) দেশের মানুষের টাকা  লুটে নিচ্ছে।

মন্ত্রী মশাইরা বিভিন্ন খাতে ভ্যাট বসিয়েছে যা মানুষ স্বপ্নেও ভাবে নাই।জিনিস পত্রের দাম আকাশ ছোঁয়া। শিক্ষা চিকিৎসা সরকারী অফিস আদালত দুর্নিতির আখাড়া।যে দেশের মন্ত্রী ঘুষ নেয়াকে (“স্পিট মানি” আবুল মাল আব্দুল মুহিতের বাণী ) বৈধতা দেয় সে দেশের জনগণ কতটা অসহায় তা বলার অপেক্ষা রাখে না।সীমান্ত এলাকাতে ভীন দেশের প্রশাসন দেশের মানুষকে হত্যা করছে অথচ সরকারে কোন প্রতিবাদ করছে না বরং ভীন দেশীদের নিজ দেশের মানুষ হত্যা করার উসকানি দিচ্ছে (“সীমান্ত এলাকায় আগেও মানুষ মরছে এখন মরবে” সৈয়দ আশরাফরে বাণী)

এম পি সাহেবদের তো কোন তুলনা হয় না জেলা শহর থেকে শুরু করে মহল্লা প্রজন্ত সন্ত্রাসের রাজত্ব  কায়েম করেছে।মাদক চাঁদাবাজি টেন্ডারবাজি চোরাচালানকারী দখলদারি তাদের ছত্র ছায়াতে লালিত হচ্ছে ।প্রতিবাদ করলেই গুম খুন ধর্ষণ মামলা হামলা নির্যাতন শুরু করে। স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনও কোন প্রকার সহায়তা করতে রাজি না।

থানা নেতা থেকে শুরু করে মহল্লার পাতি নেতারা সাধারণ জনতার উপর হাল চাষ করছে।সমাজের প্রধান কর্তা তারা ছোট খাটো কোন সালিশ হলে যিনি টাকা বেশী দিবে রায়টা তার দিকেই দিবে।অসহায় নির্যাতিত মানুষ গুলোর যাবার কোন জায়গা নাই।

আওয়মী লীগের মূল মন্ত্র

স্বাধীন দেশে করবে স্বৈরতন্ত্র।

লেখকঃ রহস্যময়ী মুখোশ