কখন হামলা হবে তা ঠিক করবে সেনাবাহিনী: মোদী

0

উরির সেনা ছাউনিতে জঙ্গি হামলায় ভারতীয় সেনা নিহতের ঘটনায় ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে উত্তেজনা বেড়েই চলেছে। ঘটনার সঙ্গে পাকিস্তান জড়িত বলে দাবি তুলেছে ভারত। তবে পাকিস্তান বলছে অন্য কথা। দেশটির দাবি, এটা মোদী সরকারের চাল। তাছাড়া কোনো ঘটনা হলেই পাকিস্তানের ওপর দায় চাপানো ভারতের স্বভাবে পরিণত হয়েছে। উরির ঘটনায় ভারতের জনগণ উত্তেজিত। তারা চায় পাকিস্তানে হামলা করুক ভারত। দেশ থেকে পাকিস্তানি অভিনয় শিল্পীদের পিটিয়ে বের করে দেয়ার ঘোষণাও দিয়েছে দেশটির কট্টরপন্থি শিবসেনারা।

এরই মধ্যে গতকাল রোববার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী তার দেয়া বক্তব্যে শুধুই পাকিস্তানের সমালোচনা করায় আরও ক্ষেপে উঠেছে সে দেশের জনগণ। প্রধানমন্ত্রীর ‘মৌখিক’ হুংকার এবং সেই কৌশল বিতর্কই বাড়িয়েছে শুধু। কারণ তার বক্তব্যে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে কড়া জবাবের হদিসই ছিল অমিল। পরিস্থিতি সামাল দিতে সোমবার কৌশল কিছুটা পাল্টালেন মোদী। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে দেশের মাটিতে রোষ সামাল দিতে মাঝামাঝি পথ নিলেন। তার বক্তব্য, যুদ্ধ না হলেও পাক জঙ্গি দমনে সামরিক অভিযান হচ্ছেই। এখন শুধু উপযুক্ত সময়ের অপেক্ষা। সেনাবাহিনী ঠিক করবে, কখন কোথায় এই হামলা হবে। এমন খবর দিয়েছে কলকাতার দৈনিক আনন্দবাজার।

বিজেপির পরিষদের বৈঠকে এই ঘোষণা দেয়ার আগে আজ আকাশবাণীর অনুষ্ঠানেও মোদী উরি প্রসঙ্গে বলেছেন, আমাদের সেনা বেশি কথা বলে না, বীরত্বেই জবাব দেয়। তবে মোদীর বক্তব্যের সমালোচনা করেছে বিরোধীরা। তারা মনে করছে, মোদী আসলে সেনাবাহিনীর ঘাড়ে বন্দুক রেখে দায় এড়িয়ে যাচ্ছেন।

কংগ্রেস আগে থেকেই অভিযোগ করে আসছে মোদীর পাক-নীতি দিশাহীন। মোদীর এ দিনের ঘোষণার পরেও তারা একই অভিযোগ তুলে সরব হয়েছে। কারণ, গতকালের মতো আজও পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সরাসরি কোনো পদক্ষেপ নেয়ার কথা বলেননি মোদী। শুধু জঙ্গি দমনের কথা বলেছেন। উরির হামলা মোদী সরকারের ব্যর্থতা বলেও মন্তব্য করেছে কংগ্রেস।