এটা ফ্রান্সের বিরুদ্ধে আইএসের যুদ্ধ ঘোষণা

0

প্যারিসের কনসার্ট হলে হামলা ফ্রান্সের বিরুদ্ধে আইএস জঙ্গিগোষ্ঠীর যুদ্ধ ঘোষণার সামিল বলে মন্তব্য করেছেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ফ্রাঁসোয়া ওলাঁদ। তিনি আরো বলেন, এই হামলার পরিকল্পনা এবং প্রস্তুতি দেশের বাইরে থেকে করা হলেও ভেতর থেকেও সন্ত্রাসীরা সহায়তা পেয়েছে।

স্থানীয় সময় গতকাল শুক্রবার রাতে প্যারিসে একাধিক সন্ত্রাসী হামলায় নিহতের সর্বশেষ সংখ্যা জানা গেছে ১২৮ জন। আহত হয়েছেন আরও দুই শতাধিক। তবে বেসরকারি হিসাবে নিহতের সংখ্যা আরো বেশি বলে জানা যাচ্ছে। নিরাপত্তা কর্মীদের সঙ্গে সংঘর্ষে আট জন হামলাকারী নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

এই বর্বর ঘটনার পর ফ্রান্সে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর এই প্রথমবার প্যারিসে কারফিউও জারি করা হয়েছে। সীমান্ত এলাকা একেবারে সিল করে দেয়া হয়েছে।

রাজধানীর একটি কনসার্ট হলে অনেককে জিম্মি করে রাখা হলে সেখানে পুলিশ অভিযান চালায়। সেখানেই অন্তত ১০০ জন নিহত হন। পুলিশকে সহায়তা করতে প্যারিসে অন্তত ১৫শ সৈনিক মোতায়েন করা হয়েছে। শহরের কয়েকটি এলাকা এবং স্টেডিয়ামে প্রায় একই সময় হামলাগুলো ঘটে।

জার্মানির বিপক্ষে ফ্রান্সের ফুটবল খেলা চলার সময় স্টেড দ্য ফ্রান্স নামের স্টেডিয়ামটিতে বিস্ফোরণের শব্দ পাওয়া যায়।
সে সময় ফরাসি প্রেসিডেন্ট ফ্রাঁসোয়া ওঁলাদও স্টেডিয়ামে খেলা দেখছিলেন।

এটি আত্মঘাতী হামলা বলেই ধারণা করা হচ্ছে। একজন বন্দুকধারীকে আধা স্বয়ংক্রিয় বন্দুক দিয়ে গুলি চালাতে দেখা গেছে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা নিয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্র দাবি করছে, এই হামলা সংঘবদ্ধ। তবে পরিকল্পিত কি না, তা এখনি বলা সম্ভব নয় বলে জানিয়েছে প্যারিস পুলিশ।