এক স্বৈরশাসকের মৃত্যুদন্ড

0

জিসাফো ডেস্কঃ হিসেন আহব্রে, চাদের সাবেক স্বৈরশাসক ১৯৮২ সালে এক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতা দখল করেছিলেন। ৮ বছর শাষণামলে তিনি খুন করেছিলেন ৪০ হাজার মানুষ। বৈদ্যুৎতিক শক, শ্বাসরোদ, সিগারেটের ছ্যাঁকা, চোখে বিষাক্ত গ্যাস দিয়ে মানুষ হত্যার কারণে পেয়েছিলেন পিশাচ উপাধি। ১৯৯০ সালে ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পর সেনেগালে পালিয়ে গিয়েছিলেন। সেই সেনাগালের আদালতই তার বিরুদ্ধে মৃত্যুদন্ড- জারি করল।

২০০০ সাল থেকে তার বিরুদ্ধে প্রথম গণহত্যার অভিযোগ ওঠে। তবে ২০০৫ সাল থেকে গৃহবন্দি করে রাখলেও তার বিরুদ্ধে কোনো বিচারকার্য সম্পন্ন করতে পারেনি সেনেগালের আদালত।

বেলজিয়ামের আন্তর্জাতিক আদালতের সহযোগিতা নিয়ে সেনাগালের আদালত এই বিচার কার্যক্রম অব্যাহত রাখে। এই আদালতকে সমর্থন দেয় আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি । ৭৪ বছর বয়স্ক আহব্রেকে মৃত্যদন্ড- দিয়ে এই প্রথমবারের মতো আফ্রিকার কোনো স্বৈরশাসকের মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিচার করা হচ্ছে।

আহব্রের বিরোধী আইনজীবী সুলেইমান গুঞ্জেং বলেন, ২৬ বছর ধরে আমি এই দিনটির জন্য অপেক্ষা করছি। এই বিচারকার্যের মধ্য দিয়ে আফ্রিকার সব স্বৈরশাসকই একটি বার্তা পেলেন। আর তা হচ্ছে কেউ-ই আইনের উর্দ্ধে নয়। অপরাধ করলে একদিন না একদিন তার শাস্তি পেতেই হবে।