একজন হারুন অর রশীদ মজনু- যার ধ্যান জ্ঞান জুড়ে শুধু বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল

0

কেএম সবুজ (সাথিয়া পাবনা)  : বর্তমান চলমান সময়ের আওয়ামী সরকারের নির্যাতন ও নিপীড়িত হয়ে যারা পঙ্গু হয়ে আছেন এবং বিএনপির নেতাকর্মীরা যারা ভয়ে মুখ থুবড়ে পড়েছেন তাদের পাশে দাড়িয়ে আগামী দিনের সফলতা ও সম্ভাবনার পথে আসার আহ্ববান জানান করমজা ইউনিয়ন বিএনপির যুগ্ম আহ্ববায়ক ,করমজা ইউনিয়ন ৪ নং ওয়ার্ডের ১৯বছরের সফল ও রানিং মেম্বার জনদরদী ও সমাজ সেবক মো: হারুন অর রশীদ মজনু । জানা যায় ,তিনি দীর্ঘ দিন যাবত আওয়ামী সরকারের নির্যাতনে সফল মেম্বার হওয়ার সত্ত্বেও পরিষদে যেতে পারেন না এছাড়া দীর্ঘদিন ধরে উক্ত করমজা ইউনিয়নের সকল বিএনপির নেতাকর্মীদের আওয়ামী সরকারের নেতাকর্মী ও পুলিশবাহিনী দিয়ে নির্যাতন করে আসছে এছাড়া সাধারন জনগনের অধিকার থেকে বঞ্চিত করে আওয়ামী নেতাদের আঙ্গুল ফুলে কলা গাছ বানাচ্ছে এসব অত্যাচারকে সহ্য করে এবার ওয়ালে যেন পিঠ ঠেকে গেছে ।

এছাড়াও আরও জানা যায় , করমজা ইউনিয়নের ও সাথিয়া উপজেলা বিএনপির সেক্রেটারী মো:শামসুর রহমান এলাকার বাইরে অবস্থান করছেন । এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায় , বেড়া উপজেলা পোরসভা মেয়রের দুদকের পূথক তিনটি মামলা থাকার কারনে করমজা ইউনিয়নে দীর্ঘ ১৯বছর যাবত কোন নির্বাচন হয়নি। জানা যায় ,করমজা ইউনিয়নে ১৯৯৭ সালে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ইহাতে ৯টি ওয়ার্ডের মধ্যে থেকে করমজা ইউনিয়ন এর ৪নং ওয়ার্ড মো:হারুন অর রশীদ মজনু মেম্বার পদপ্রার্থী হতে নির্বাচিত হয় এরপর থেকে উল্লেখিত বেড়া পোরসভার দুদকের পূথক তিনটি মামলা ও মেয়রের গাফিলতি ও জোড়পূর্বক ক্ষমতায় থাকার কারণে দীর্ঘ ১৯বছর এ ইউনিয়নে নির্বাচন হয়নি পক্ষান্তরে , গত ৭ ই আগস্ট ২০১৬ইং তারিখে বেড়া পোর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলেও এ পর্যন্ত করমজা ইউনিয়নের নির্বাচনের যেন কোন গন্ধ বাসনাওনেই । স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের আশ্বাস খুব দ্রুত করমজা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে এবং সেখানে দলীয় ভাবে প্রতিকী হিসেবে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ থেকে ভিন্ন ভিন্ন প্রার্থীর আবির্ভাব থাকলেও বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশি ধানের শীষ প্রতিক পাওয়ার আশা নিয়ে মো: হারুন অর রশীদ মজনু (মেম্বার ) ইউনিয়ন এর প্রত্যন্ত অঞ্চল ঘুরে ঘুরে এলাকাবাসীর দোয়া ও বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দক বিএনপির হাতকে শক্তি শালী করার আহ্ববান জানান ।

এ বিষয়ে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশি মো: হারুন অর রশীদ মজনু জানান , বিএনপির স্বার্থে আমি মাঠে নেমে নেতা কর্মীদের খোজ খবর নিচ্ছি সাধারন ভাবে এলাকায় ঢুকলে পুলিশ দিয়ে আওয়ামীরা অত্যাচার করে তাই আশা রাখি এই নির্বাচনের প্রচারণার মাধ্যমে বিএনপির সংগ্রামী কর্মীদের সাহস জুগিয়ে নির্বাচনে আওয়ামী দের সাথে মাঠে লড়বো আর বিশেষ করে আমার মনোয়ন পাওয়ার ক্ষেত্রে বলি যদি কোন প্রতারণা ,ঘুষ গ্রহন ছাড়া সঠিক ও বিএনপির একনিষ্ঠ প্রার্থী বাছাই করা হয় তাহলে আশা রাখি আমি বাদ পড়বো সে সিরিয়ালে আমিই আগে থাকবো ইনশাল্লাহ । সবশেষে বিএনপির হাত শক্তিশালী ও গণতন্ত্র উদ্ধারের আহ্ববান জানান তিনি ।