আওয়ামী লীগ গণতন্ত্রের স্বপ্নকে ভেঙে খান খান করে দিয়েছে

0

জিসাফো ডেস্কঃ আওয়ামী লীগ পুরোনো পরীক্ষিত স্বৈরাচার বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।আওয়ামী লীগ গণতন্ত্রের স্বপ্নকে ভেঙে খান খান করে দিয়েছে।

রাজধানীর সেগুনবাগিচায় অবস্থিত ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) গোলটেবিল মিলনায়তনে নব্বই’র গণ-অভ্যুত্থানের শহীদ ডা. শামসুল আলম খান মিলনের ২৬ তম শাহাদাতবার্ষিকী উপলক্ষে ‘ডা. মিলন, গণতন্ত্র ও বর্তমান প্রেক্ষাপট’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘৭২ থেকে ৭৫ সাল পর্যন্ত তারা যে একনায়কতন্ত্র ভূমিকা পালন করেছে, তারা যে গণতন্ত্রের স্বপ্নকে ভেঙে খান খান করে দিয়েছে তা আমরা দেখেছি। আমরা দেখেছি যে আওয়ামী লীগ কি ভয়াবহ দানবে রুপ নিতে পারে, যখন ক্ষমতা তাদের কাছে যায়। মুখে বলবে গণতন্ত্রের কথা কাজ করবে উল্টোটা।’

সরকার বিএনপি নেতাকর্মীদের অত্যাচার করেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমরা দেখেছি আমাদের ১ হাজারের বেশি নেতাকর্মীকে হত্যা করা হয়েছে, ৫’শর বেশি নেতাকর্মীকে গুম করা হয়েছে। হাজার হাজার নেতাকর্মীকে পঙ্গু করে দেওয়া হয়েছে।’

বিএনপির আন্দোলন সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘কেউ কেউ বলেন যে আমাদের আন্দোলন হয়নি, ২০১৩ সালের নির্বাচনের আগে ও পরে, ২০১৫ সালে যে আন্দোলন হয়েছে সেখানে বাংলাদেশে বহু প্রাণ চলে গেছে।

বহু অত্যাচারের শিকার হতে হয়েছে। এমন নেতাকর্মী নেই যাদের বিরুদ্ধে মামলা নেই। তাই এ কথা যারা বলেন তারা সত্য কথা বলেন না।’

‘যেখানেই হত্যা, সন্ত্রাস, টেন্ডারবাজি সেখানেই তাদের দলের লোকেরা উপস্থিত আছে। তাই তাদের নব্য স্বৈরাচার বলার সুযোগ নেই, সুযোগ পেলেই তারা দানবে পরিণত হয়। এজন্য গণতান্ত্রিক আন্দোলনের যুদ্ধ সহজ নয়।’— বলেন মির্জা ফখরুল।

আওয়ামী লীগকে উদ্দেশ্য করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘দাম্ভিকতা ও অহংকার ছেড়ে সহনশীলতার পথে আসুন। এসে ইসি (নির্বাচন কমিশন) গঠনে খালেদা জিয়ার প্রস্তাবনা বিবেচনায় নিয়ে আলোচনার উদ্যোগ নিন। রাষ্ট্রনায়কের মতো নেতৃত্ব দিন। এই দেশ কারো একার পৈতৃক সম্পত্তি নয়।’

আ’লীগ দেশের সকল অর্জনকে ধ্বংস করে দিচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘বিএনপি যেখানে ক্ষমতা হস্তান্তরের জন্য একটি গণতান্ত্রিক পদ্ধতি ও পরিবেশ চায় সেখানে আওয়ামী লীগ সারাক্ষণ বিএনপিকে কীভাবে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়ানো যায় সেই চেষ্টা করে। ফলে দেশে আজ শান্তি নেই, স্বস্তি নেই।’

বিএনপিপন্থী চিকিৎসকদের সংগঠন ড্যাবের কার্যকরী সদস্য ও দলটির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা প্রফেসর ডা. সিরাজ উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন আমান উল্লাহ আমান, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, সহ-তথ্য বিষয়ক সম্পাদক কাদের গনি চৌধুরী প্রমুখ।