আওয়ামী লীগের সময় ফুরিয়ে যাচ্ছে:ব্যারিস্টার মওদুদ

0

জিসাফো ডেস্কঃ সময় ফুরিয়ে যাচ্ছে উল্লেখ করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেছেন, ‘সেই ২০০৭ সাল থেকে এখন পর্যন্ত প্রায় ৯ বছর গণতন্ত্রহীনতার মধ্যে রয়েছি। তবে কেউ যদি মনে করেন এর কোনো সমাপ্তি হবে না, চলতেই থাকবে, তা হবে মারাত্মক ভুল। এই পরিস্থিতির সমাপ্তি হবেই। আর সেটা বিএনপির নেতৃত্বেই হবে।’

ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে শুক্রবার দুপুরে এক গোলটেবিল বৈঠকে তিনি এ মন্তব্য করেন। ‘নিরপেক্ষ সরকার ও নিরপেক্ষ শক্তিশালী নির্বাচন কমিশন গণতন্ত্র ভোটাধিকার ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের পূর্বশর্ত’ শীর্ষক ওই গোলটেবিল বৈঠকের আয়োজন করে বাংলাদেশ সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদ।

মওদুদ আহমদ বলেন, ‘বিএনপি চেয়ারপারসন দেশে গণতন্ত্র ফেরাতে চান। এ জন্য তিনি প্রস্তাব দিয়েছেন। এটা কোনো আইন নয়। আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে শক্তিশালী নির্বাচন কমিশন গঠন করে সুষ্ঠু নির্বাচন হতে পারে। সরকার উদ্যোগ নিলে বিএনপি সহযোগিতা করবে।’

খালেদা জিয়ার প্রস্তাব পর্যালোচনা না করেই প্রত্যাখ্যান করা আওয়ামী লীগের ভুল দাবি করে স্থায়ী কমিটির এই নেতা বলেন, ‘ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ একটি অরিজিনাল ফ্যাসিবাদী দল। একদলীয় শাসন মনোভাবাপূর্ণ বলেই তারা খালেদা জিয়ার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছে। তাদের উচিত ছিল খালেদা জিয়ার প্রস্তাবকে স্বাগত জানানোর। সত্যিকার গণতান্ত্রিক দল হলে তারা আলোচনার উদ্যোগ নিত।’

ব্যারিস্টার মওদুদ বলেন, ‘১৯৭২ থেকে ৭৫ পর্যন্ত আওয়ামী লীগ একই ধ্যানধারণা চিন্তা-চেতনা নিয়ে সরকার পরিচালনা করেছে। ক্ষমতার থাকার জন্য যা যা প্রয়োজন তাই করছে। রাজনীতি মানে সবার অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা। আমরা এখনো আহ্বান জানাই আলোচনায় বসার।’

স্থায়ী কমিটির এই সদস্য আরো বলেন, ‘রাজনীতি হতে হবে সমঝোতার মাধ্যমে। একদলীয় শাসনের নতুন সংস্করণ এখন দেখতে পাচ্ছি। রাজনীতির চরম অবক্ষয় ঘটেছে। মাটির নিচে চলে গেছে। ফ্লাইওভার নট স্টেট ভ্যেলু। রাষ্ট্রীয় মূল্যবোধ ফ্লাইওভার থেকে পাওয়া যায় না।’

সভায় দলটির অপর স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জ সিটি (নাসিক) নির্বাচনে সেনাবাহিনী না চেয়ে আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী পরিষ্কার করেছেন সেনাবাহিনী থাকলে সুষ্ঠ নির্বাচন আর না থাকলে সিলেকশন হয়।’

তিনি বলেন, ‘গত সিটি নির্বাচনে আইভী সুষ্ঠু নির্বাচন চেয়েছিলেন যার কারণে সেনাবাহিনীর প্রয়োজনের কথা বলেছিলেন। এবার তিনি নির্বাচন নয়, সিলেকশান করবেন এ কারণে তিনি সেনাবাহিনী চাচ্ছেন না। সেনাবাহিনী মোতায়ন ছাড়া বাংলাদেশে কোনো সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়।’

আয়োজক সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক রুহুল আমিন গাজীর সভাপতিত্বে গোলটেবিল বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান এ জেড এম জাহিদ হোসেন, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক এ বি এম ওবায়দুল ইসলাম, সাংবাদিক মাহফুজ উল্লাহ, বিএনপির গণশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক অধ্যক্ষ সেলিম ভূইয়া।